Breaking Posts

6/trending/recent
Type Here to Get Search Results !

আসাম: ২০ বছর বয়সে ৩টা বাচ্চা হলো কি করে? ত্রাণ শিবির পরিদর্শনে গিয়ে প্রশ্ন হিমন্তর

(Representative Image, Credits: FirstPost)

ত্রাণ শিবির পরিদর্শনে গিয়ে মেজাজ হারালেন আসামের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা। কারণ- এক ব্যক্তির ৩টি সন্তান। বিরক্তির সুরে ওই ব্যক্তিকে হিমন্ত বিশ্বশর্মার প্রশ্ন, এরই মধ্যে ৩টি বাচ্চা? পরে আর হবে নাকি? মুখ্যমন্ত্রীর মুখ থেকে এমন প্রশ্ন শুনে থতমত খেয়ে ভাষা হারালেন ওই ব্যক্তি।

ভয়াবহ বন্যার কবলে আসামের বিস্তীর্ণ এলাকা। বন্যার জলের তোড়ে ভেসে গিয়েছে ঘরবাড়ি, গবাদি পশু। অনেকেই সব হারিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন ত্রাণ শিবিরে। মূলত সরকারি স্কুল, উঁচু অঞ্চলের বাড়িঘরকে অস্থায়ী ত্রাণ শিবিরে রূপান্তরিত করা হয়েছে। বিগত কয়েকদিন ধরেই সেই সব ত্রাণ শিবিরগুলি পরিদর্শন করছেন হিমন্ত বিশ্বশর্মা।

গতকাল কামপুরে তেমনই একটি ত্রাণ শিবিরে যান হিমন্ত। সেখানে গিয়ে খাবার, ওষুধ ও পানীয় জলের সম্পর্কে খোঁজখবর নেন। সেই সময় এক মুসলিম ব্যক্তির দিকে নজর পড়ে হিমন্তর। সে জানায় যে তাঁর তিনটি সন্তান। কাছেই ওই ব্যক্তির স্ত্রীও ছিলেন। স্ত্রী-র বয়স কত জানতে চান হিমন্ত। উত্তরে সে জানায় যে তাঁর বয়স ২০ বছর। 

তা শুনেই মেজাজ হারান মুখ্যমন্ত্রী। ২০ বছর বয়সে ৩টা বাচ্চা? কি করে সম্ভব? মুখ্যমন্ত্রীর সামনে কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে পড়েন ওই দম্পতি। পরে হিমন্ত তাদের নামও জিজ্ঞেস করেন। মুখ্যমন্ত্রী পাল্টা জিজ্ঞেস করেন, আর হবে নাকি? উত্তরে তাঁরা মাথা নেড়ে ‛না’ জানায়।

উল্লেখ্য, মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পরই আসামের ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যা নিয়ে বারবার উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন হিমন্ত বিশ্বশর্মা। বিশেষ করে রাজ্যের একাধিক জেলায় যেভাবে হিন্দুরা সংখ্যালঘু হয়ে পড়ছে, তা নিয়েও একাধিকবার গভীর উদ্বেগ ব্যক্ত করেছিলেন তিনি। তারপরই জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ আইন পাস করেন হিমন্ত সরকার। আইন অনুযায়ী, দুই সন্তানের বেশি থাকলে সে সরকারি সুযোগ-সুবিধা পাবে না। এমনকি তাদের পিতা-মাতা ভোটে দাঁড়াতে পারবেন না এবং সরকারি চাকরি থেকে বঞ্চিত হবে তাঁরা। 


Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Ads Bottom