Breaking Posts

6/trending/recent
Type Here to Get Search Results !

বেদে একেশ্বরবাদ



© শ্রী প্রোজ্জ্বল মন্ডল

বৈদিক ধর্মে এক আর বহু দেবতায় কোন বিরোধিতা নাই। তাঁহাদের অনুভব একের ভাবনা বহুকে লইয়া। বহুকে বাদ দিয়া নহে। বৈদিক ভাবনায় বহু দেবতা একই ঈশ্বরের প্রকাশ বা মহিমা। এক আর বহু পরস্পর বিরোধী নহে, বহু একেরই বিভূতি।

বেদের বহু দেবতা মূলতঃ একজন।" একো দেবঃ" এই কথাটি বেদের বহু স্থানে বলা হইয়াছে। ইহা হইল এক প্রকার সংকেত। আর এক সংকেত হইল একং সৎ। মন্ত্রে দীর্ঘতমা ঋষি বলিয়াছেন--

" ইন্দ্রং মিত্রং বরুণমগ্নিমাহুরথো দিব্য স সপর্ণো গরুত্মান্।

একং সদ্বিপ্রা বহুধা বদন্ত্যগ্নিং যমং মাতরিশ্বানমাহুঃ।। " এই মন্ত্রে ঋষি বলিতেছেন-- ইন্দ্র, মিত্র বা অগ্নি ও দ্যুলোকের সুপার্ণ সকলেই সৎস্বরূপের প্রকাশ। এই বহু মন্ত্রে একং সৎ উক্ত হইয়াছে।

আর একটি সংকেত হইল" একং তৎ " ঋদ্বেদ ২/১২৯/২ মন্ত্রে ঋষি প্রজাপতি বলিয়াছেন--

" ন মৃত্যু বাসীদমৃতং ন তর্হি ন বাত্র্যা অহ্ন আসীৎপ্রকেতঃ।

আনীদবাতং স্বধয়া তদেকং তসমাদ্ধান ন্ন পরঃ কিং চ নাস।।

এই বিশ্বজগৎ প্রকাশিত হইবার পূর্বে অসৎকে বা অব্যক্তকে বলা হইয়াছে " তদেকম্"।  তখন মৃত্যুও ছিল না অমরত্বও ছিল না। রাত্রি ও দিনের প্রভেদ ছিল না কেবল সে একমাত্র বস্তু বায়ুর সাহায্য ছাড়া আত্ম মাত্র অবলম্বনে নিশ্বাস প্রশ্বাস যুক্ত না হইয়ে জীবিত ছিলেন। তিনি ব্যতীত আর কিছুই ছিল না।

পূর্বোক্ত এক যখন প্রকাশিত, তখন তিনি সৎ, যখন অপ্রকাশিত তখন তৎ। সব দেবতা এই সৎ স্বরূপের বিভূতি।

বিশ্বের অনন্ত কার্য- পরম্পরাকে ভিন্ন ভিন্ন দেবতা নামে স্তুতি করা হয়। সে কার্য সমূহ ভিন্ন নহে একই। তাঁহাদের দেব ক্ষমতা ও ঐশ্বরিক বল একই।

একই বহু হইয়াছেন, আবার বহু প্রকাশের মধ্যে একই বিরাজমান আছেন। তাইতো ঋষিদের বাক্য " একং সদ্বিপ্রা বহুধা বদন্তি ",  একো বশী সর্বভূতাত্মারাত্ম", এবং " একং রূপং বহুদা যঃ করোতি " ( কৃষ্ণ যজুর্বেদীয় কঠ উপঃ ২/২/১২) 

একই ইচ্ছা বহু হইয়াছেন, আবার বহুর মধ্যে একই অনুসৃত হইয়া রহিয়াছেন। তাই ঋষিরা বলেন--" একমেবাদ্বিতীয়ম্ ",  আবার বলেন  " সর্বং খল্বিদং ব্রহ্ম "। 

গীতায় একটি পরাশক্তির কথা বলা হইয়াছে যিনি বিশ্ব জগৎ ধারণ করিয়া আছেন " যয়েদং ধার্যতে জগৎ।  নিখিল বিশ্ব ময় প্রাণ শক্তি বিরাজিত, প্রাণ শক্তির তরঙ্গে বিশ্ব সঞ্জীবিত। এই প্রাণ শক্তির যাহা মূল তাহাই অসুরত্ব। অসুরত্বম্একম্।

গীতায় শ্রী কৃষ্ণের উক্তি " সর্বস্য হৃদি সন্নিবিষ্টঃ " আবার শ্রুতিতে আছে " তৎ সৃষ্ট্বা তদেবানুপ্রবিশৎ "। এক যদি বহুর মধ্যে প্রত্যেক অনুপরমাণুর মধ্যে অনুসৃত হইয়া থাকেন তাহা হইলে একত্ব ও বহুত্বের দ্বন্দ্ব কোথায় থাকে? 

ঋষি দর্শন করিয়া ধন্য হয়েন, সকল বস্তুর মধ্যে একই ইষ্টদেবতার প্রকাশ, আলোর মধ্যে তাঁহাকে প্রকট দেখা যাইতেছে। বায়ুর মধ্যে তাঁহারই দেওয়া প্রাণের অভিব্যক্তি, অগ্নির মধ্যে তাঁহারই দেওয়া ঔজ্জ্বল্য, সর্বভূতে ঈশ্বরের অনুভবে হৃদয় তাঁহার আনন্দ পূর্ণ। তাইতো ঋষি নিঃ সংশয়ে বলিয়াছেন-- " সর্বং খলু ইদং ব্রহ্ম, ঈশা বাস্যম্ ইদং সর্বং " সকল কিছু আচ্ছাদিত করিয়া সেই একই ঈশ্বর বিরাজিত।

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Ads Bottom