Breaking Posts

6/trending/recent
Type Here to Get Search Results !

লাদাখ: কার্গিলে বৌদ্ধ মঠ নির্মাণে বাধা স্থানীয় মুসলিমদের, ক্ষুব্ধ বৌদ্ধরা

 


এক বৌদ্ধ মঠ নির্মাণের দাবিকে ঘিরে উত্তপ্ত লাদাখের কার্গিল। বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের মানুষজন মঠ নির্মাণের চেষ্টা করলেও তাতে বাধা দিচ্ছেন স্থানীয় মুসলিম সংগঠনগুলি। আর যা ঘিরে কার্গিলের পরিস্থিতি উত্তপ্ত। 

উল্লেখ্য, জনবীন্যাসের দিক থেকে কার্গিল মুসলিম অধ্যুষিত এলাকা। আর ওই এলাকায় বৌদ্ধরা সংখ্যালঘু। কিন্তু বৌদ্ধ ধর্মের মানুষজনের উপাসনার জন্য ওই এলাকায় কোনও বৌদ্ধ মঠ কিংবা গুম্ফা নেই। ফলে ওই এলাকার বৌদ্ধদের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল যে ঐ এলাকায় একটি বৌদ্ধ গুম্ফা ও মঠ নির্মাণ করা হোক।

ছবি: LBA-এর জারি করা বিবৃতি


সেই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে ১৯৬১ খ্রিস্টাব্দের ১৫ই মার্চ তৎকালীন জম্মু-কাশ্মীর সরকারের লাদাখ দপ্তর ‛লাদাখ বুদ্ধিস্ট এসোসিয়েশন’(LBA)-কে জমি দান করে। কিন্তু তার বিরুদ্ধে আপত্তি জানায় স্থানীয় মুসলিমরা। তাঁরা এর বিরুদ্ধে সরকারের কাছে বারবার আবেদন জানায়। তারই পরিপ্রেক্ষিতে জম্মু-কাশ্মীর সরকার ১৯৬৯ খ্রিস্টাব্দের ১৮ই জুন সেই জমির অনুমোদন বাতিল করে জানায় যে ঐ জমিতে বৌদ্ধ মঠ কিংবা গুম্ফা নির্মাণ করা যাবে না। বদলে ওই জমিতে অতিথিশালা নির্মাণ করা যেতে পারে। তার বিরুদ্ধে আপত্তি জানায় বুদ্ধিস্ট এসোসিয়েশন। 

ছবি: গুম্ফা নির্মাণের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে দেওয়া মুসলিম সংগঠনের চিঠি


এরই মধ্যে গত ১১ই জুন একদল বৌদ্ধ সন্ন্যাসী ওই স্থানে যাওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু তাদেরকে বাধা দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। LBA-এর প্রধান স্কারমা দাদুলের অভিযোগ, বেশ কয়েকটা মুসলিম সংগঠন বৌদ্ধ মঠ ও গুম্ফা নির্মাণে বাধা দিচ্ছে। এমনকি পুরোনো ভগ্নপ্রায় গুম্ফাটির মেরামত কাজে বাধা দিচ্ছে তাঁরা। LBA অভিযোগ তুলেছে ইসলামিয়া স্কুল ও ইমাম খোমেইনি মেমোরিয়াল ট্রাস্টের দিকে। 

ইতিমধ্যেই এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ LBA। LBA-এর তরফে বিবৃতি জারি করা হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, ‛ Everyone strongly condemned the provocative and threatening speeches given by IKMT, Kargil and Islamia School, Kargil heads which were purely done with an intention to provoke common people and the youths in order to disrupt the peaceful environment as well as create a Law and Order situation in Union Territory of Ladakh.”

এদিকে এই ঘটনার প্রতিবাদে সরব হয়েছে লাদাখ বিজেপি। লাদাখের বিজেপি সহ সভাপতি দোরজে আঙচুক বলেন, ‛প্রত্যেকের উপাসনা করার অধিকার রয়েছে। তাই ওই স্থানে বৌদ্ধ গুম্ফা নির্মাণ করা উচিত’।

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Ads Bottom