Breaking Posts

6/trending/recent
Type Here to Get Search Results !

বিহার: সাধু সেজে অর্থ সংগ্রহ, গ্রেপ্তার ৬ মুসলিম যুবক

Image credits: NBT


হিন্দু সাধু সেজে বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে ঘুরে অর্থ সংগ্রহ করছিলেন একদল যুবক। কথা বার্তায় কিছু স্থানীয় মানুষের সন্দেহ হওয়ায় চেপে ধরতেই বেরিয়ে এলো আসল সত্য। জানা গেল যে ঐ যুবকরা আসলে হিন্দুই নন। অর্থ রোজগারের উদ্দেশ্যে সাধু সেজে বোকা বানাচ্ছিলেন সাধারণ ধর্মপ্রাণ হিন্দুদের। তা জানার পরই তাদের বেধড়ক পিটিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দিলেন স্থানীয়রা। ঘটনা বিহারের বৈশালী জেলার হাজীপুরের।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই ৬ মুসলিম যুবক হাতে একটি ষাঁড় নিয়ে ঘুরতেন বিভিন্ন এলাকায়। তাঁরা সাধারণ হিন্দুদের বলতেন, কিছু পয়সা দান করতে, তাদের ‛নন্দী মহারাজ’-এর আশীর্বাদ লাভ করার কথা বলতেন। সারাদিন এভাবে বিভিন্ন হিন্দু অধ্যুষিত এলাকায় অর্থ সংগ্রহ করতেন। পরে সন্ধ্যা নামলে ভিড় জমাতেন হাজীপুরের একটি মন্দিরে। সেখান মন্দিরে আসা পুণ্যার্থীদের কাছে অর্থ ভিক্ষা করতেন। সেখানেই প্রসাদ খেয়ে রাতে থাকতেন। এভাবেই চলছিল।

ধৃতরা হলো করিম আহমেদ(৩৮), সৈয়দ আলী(৪০), হাসান(৩০), মেহবুব(৩২), হালিম আহমেদ(৩৫) এবং সুবরাতি মহম্মদ(৩০)। জেরায় তাঁরা জানায় যে তাঁরা সকলেই উত্তর প্রদেশের বাহরাইচ-এর বাসিন্দা।

গতকাল ২৫শে জুলাই, কদমঘাট এলাকায় নন্দী মহারাজ নিয়ে অর্থ সংগ্রহ করার সময় এক ব্যক্তির একটি সন্দেহ হয়। তিনি হিন্দু ধর্ম ও শাস্ত্র বিষয়ে বেশ কয়েকটি প্রশ্ন করেন। কিন্তু সেই সব প্রশ্নের উত্তর দিতে পারেননি ৬ সাধুর কেউই। তারপরই ওই সাধুদের চেপে ধরেন স্থানীয়রা। 

ইতিমধ্যেই স্থানীয় কয়েকজন ব্যক্তি বজরং দলের সদস্যদের খবর দেন। তাঁরা এসে ওই সাধু সেজে থাকা লোকদের মারধর করতে থাকেন। মারধরের চাপে ওই ব্যক্তিরা স্বীকার করে যে তাঁরা হিন্দু নন। পয়সা রোজগারের উদ্দেশ্যে তাঁরা এমন রূপ ধরে ঘুরছিলেন।  পরে তাদেরকে পুলিশের হাতে তুলে দেন তাঁরা।

পুলিশ এসে তাদেরকে থানায় নিয়ে যায়। সেখানে জেরায় তাঁরা জানায় যে শ্রাবনী মেলা উপলক্ষে হিন্দুরা খুব দান করে। তাই এই মাসকে টার্গেট করেছিল তাঁরা। এদিকে এমন ঘটনায় চিন্তিত পুলিশও। যাতে কোনওরকম অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে, তার জন্য তাঁরা নজরদারি আরও বাড়াবেন বলে জানানো হয়েছে পুলিশের তরফে।  

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Ads Bottom