Breaking Posts

6/trending/recent
Type Here to Get Search Results !

বাংলাদেশে ভয়াবহ হিন্দু নির্যাতন, ২০২২ সালে ৭৯ জন হিন্দুকে হত্যা করা হয়েছে

ছবি: হিন্দু মহাজোটের সাংবাদিক সম্মেলন

বাংলাদেশে হিন্দু নির্যাতনের হার বেড়ে চলেছে ভয়াবহ হারে। খুন, ধর্ষণ, মন্দিরে হামলা, অপহরণ, জমি দখল- সব কিছুই বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে। জাতীয় হিন্দু মহাজোটের করা এক সাংবাদিক সম্মেলনে পেশ করা তথ্যে এমনই ভয়াবহ চিত্র উঠে এসেছে।  

গতকাল শনিবার, ২রা জুলাই ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি হলে এক সাংবাদিক সম্মেলন করে জাতীয় হিন্দু মহাজোট। সেই সম্মেলনে অন্যান্য শীর্ষ নেতৃত্ব সমেত উপস্থিত ছিলেন মহা সচিব শ্রী গোবিন্দ চন্দ্র প্রামানিক। সেই সম্মেলনে ক্রমবর্ধমান হিন্দু নির্যাতন নিয়ে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন তাঁরা।

গোবিন্দ চন্দ্র প্রামানিক বলেন, ‛২০২২ সালে এখনও পর্যন্ত বাংলাদেশে সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের ৭৯ জনকে হত্যা করা হয়েছে। এই সময়ের মধ্যে ৬২০ জনকে হত্যার হুমকি, ১৪৫ জনকে হত্যার চেষ্টা, হামলায় আহত হয়েছেন ১৮৩ জন এবং নিখোঁজ হয়েছেন ৩২ জন হিন্দু।’

গোবিন্দ চন্দ্র প্রামাণিকের দাবি, চলতি বছরের প্রথম ছয় মাসে ৪৬৮টি বসতবাড়ি হামলা ভাঙচুর ও লুটপাট, ৩৪৩টি অগ্নিসংযোগ, ৯৩টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা, ২ হাজার ১৫৯ একর ৩৬ শতাংশ ভূমি দখল এবং ৪১৯ একর ৬৩ শতাংশ দখলের তৎপরতা চালানো হয়েছে। ঘরবাড়ি দখল হয়েছে ১৭টি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ২৯টি, মন্দিরের জমি দখল ২৯টি, বসতবাড়ি উচ্ছেদ হয়েছে ১৩২টি। এ ছাড়া ৭১৭টি পরিবারকে উচ্ছেদের চেষ্টা, ৮ হাজার ৯৪৩টি পরিবারকে উচ্ছেদের হুমকি, ১৫৪টি পরিবারকে দেশত্যাগের বাধ্যকরণ, ৩ হাজার ৮৯৭টি পরিবারকে দেশত্যাগে হুমকির শিকার এবং ১ লাখ ১৫ হাজার ৪২৯টি পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে।

তিনি আরও দাবি করেন, চলতি বছরে ৫০১টি সংঘবদ্ধ হামলা, ৫৬টি মন্দিরে হামলা, ভাংচুর ও অগ্নি সংযোগ, ২১৯টি প্রতিমা ভাংচুর, ৫০টি প্রতিমা চুরি, ৭৭ জনকে অপহরণ, ১৫ জনকে অপহরণের চেষ্টা করা হয়েছে। হিন্দু সম্প্রদায়ের ১৩ জন ধর্ষণ, ১০ জন সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার, ধর্ষণের পর তিন জনকে হত্যা, ১৯ জনকে ধর্ষণচেষ্টা, ৯৫ জনকে ধর্মান্তরিত করা, ২১ জনকে ধর্মান্তরের চেষ্টা, ৬৩টি ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের ঘটনাও ঘটেছে দেশে।

সেই সঙ্গে বাংলাদেশের সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষজনের নিরাপত্তা, গণতান্ত্রিক অধিকার সুনিশ্চিত করার লক্ষ্যে একাধিক দাবি জানান মহাজোট নেতৃত্ব। বাংলাদেশের জাতীয় সংসদে হিন্দুদের জন্য ৬০টি সংরক্ষিত আসন, পৃথক  নির্বাচন ব্যবস্থা এবং সংখ্যালঘু মন্ত্রক প্রতিষ্ঠা করার দাবি জানানো হয়।

সম্মেলনে মহাজোট নেতৃত্ব বলেন, আজ বাংলাদেশের কোথাও সংখ্যালঘু হিন্দুরা শান্তিতে নেই। প্রায় প্রতিদিনই কোথাও না কোথাও হিন্দুদের উপরে হামলা হচ্ছে, বাড়িঘর লুট হচ্ছে, মন্দিরে হামলা, ধর্মান্তরণের ঘটনা ঘটছে। এমন পরিস্থিতিতে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নিরাপত্তা ও স্বার্থ সুনিশ্চিত করতে সরকারকে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে বলে দাবি জানান জাতীয় হিন্দু মহাজোটের নেতৃত্ব।

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Ads Bottom