Breaking Posts

6/trending/recent
Type Here to Get Search Results !

গাজিয়াবাদ: বিয়ে করতে অস্বীকার করায় প্রেমিক ফিরোজকে গলা কেটে খুন করলো প্রীতি শর্মা

ছবি: ধৃত প্রীতি শর্মা


দীর্ঘদিন লিভ-ইন সম্পর্কে থাকার পরও বিয়ে করতে রাজি ছিল না প্রেমিক। আর এ নিয়ে প্রায়ই দুজনের মধ্যে অশান্তি লেগে থাকতো। শেষে রাগের মাথায় প্রেমিকের গলা কেটে খুন করলো প্রেমিকা। ঘটনা উত্তর প্রদেশের গাজিয়াবাদের। ধৃত প্রেমিকার নাম প্রীতি শর্মা। আর মৃত প্রেমিকের নাম ফিরোজ।

পুলিশ জানিয়েছে, গত রবিবার একটি বড়ো সুটকেস নিয়ে গাজিয়াবাদ রেল স্টেশনের দিকে এক মহিলাকে যেতে দেখেন তাঁরা। টহলদারী দলের পুলিশকর্মীদের সন্দেহ হয়। ব্যাগ খুলতেই বেরিয়ে পড়ে লাশ। পরে জিজ্ঞাসাবাদে প্রীতি শর্মা জানায় যে সে তাঁর প্রেমিককে খুন করেছে। তারপরেই তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে খবর, প্রীতি শর্মা গাজিয়াবাদের তুলসী নিকেতন এলাকার বাসিন্দা। পূর্বে তাঁর সঙ্গে দীপক যাদব নামে এক ব্যক্তির বিয়ে হয়েছিল। কিন্তু ৪ বছর আগে ডিভোর্স হয়ে যায় তাঁর। তারপরেই ফিরোজের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে সে। প্রেমিক ফিরোজকে নিয়ে তুলসী নিকেতন এলাকায় নিজের ফ্ল্যাটে থাকতো সে। প্রেমিক ফিরোজ পেশায় সামান্য একজন নাপিত হওয়ায় সমস্ত খরচ চালাতো প্রীতি।

প্রায় চার বছর লিভ-ইন সম্পর্কে থাকার পর ইদানিং ফিরোজকে বিয়ের জন্য চাপ দিছিলো প্রীতি। কিন্তু ফিরোজ বিয়ে করতে চাইছিল না, বরং এইভাবেই লিভ-ইন সম্পর্ক চালিয়ে যেতে চাইছিল। এ নিয়ে প্রায়ই দুজনের মধ্যে তুমুল ঝগড়া হতো। গত ৭ই আগস্ট তারিখে দুজনের মধ্যেও তুমুল ঝগড়া হয়। সেই সময় প্রীতি খুর চালিয়ে দেয় ফিরোজের গলায়। পরে মৃত্যু নিশ্চিত করতে গলা কেটে দেয় সে। 

পুলিশ জানিয়েছে, ওইদিন রাতে ফিরোজের দেহ নিজের ফ্ল্যাটে রাখে সে। পরেরদিন সকালে উঠে সে মার্কেটে যায়। সেখান থেকে একটি বড় স্যুটকেস কিনে আনে। তারপর ফিরোজের দেহ সেই স্যুটকেসের ভিতরে ভরে রেল স্টেশনে নিয়ে যাচ্ছিলো প্রীতি। কোনও দূরপাল্লার ট্রেনে সেই স্যুটকেস তুলে দেওয়ার পরিকল্পনা করেছিল সে। কিন্তু তার আগেই পুলিশের হাতে ধরা পড়ে যায় সে। 

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Ads Bottom