Breaking Posts

6/trending/recent
Type Here to Get Search Results !

আসাম: কওমি মাদ্রাসাগুলিকে সরকারি পোর্টালে নথিভুক্ত করতে হবে, জিহাদি কার্যকলাপ দমনে উদ্যোগী রাজ্য সরকার


আসামের মাটিতে চলা ব্যক্তিগত মাদ্রাসা অর্থাৎ কওমি মাদ্রাসার উপরে নজরদারি রাখতে বিশেষ উদ্যোগ নিলো আসাম সরকার। সমস্ত কওমি মাদ্রাসাকে বিশেষ সরকারি পোর্টালের মধ্যে নথিভুক্ত হতে হবে। গতকাল আসামের ডিজিপি ভাস্কর জ্যোতি মোহন্তের সঙ্গে ইসলামিক সংগঠনের নেতৃত্ব এবং  কওমি মাদ্রাসার পরিচালকদের বৈঠকে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, আসামে সরকারি অর্থে চলা মাদ্রাসা বন্ধ হওয়ার পরই আসামের আনাচে কানাচে কওমি মাদ্রাসা ব্যাঙের ছাতার মত গজিয়ে উঠেছে। তাদের মধ্যে বেশ কিছু মাদ্রাসা আবার জিহাদি কাজকর্মে জড়িত। ইদানিং একাধিক মাদ্রাসা থেকে বাংলাদেশি জিহাদি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিম(ABT) এবং আল কায়দা ইন ইন্ডিয়ান সাব-কন্টিনেন্ট(AQIS)-এর সঙ্গে যুক্তদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আর তাই কওমি মাদ্রাসাগুলির উপরে প্রশাসনের নজরদারি অনিবার্য হয়ে উঠেছিল। 

তারপরই রাজ্যের সমস্ত কওমি মাদ্রাসাগুলিকে একটি পোর্টালে নথিভুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেয় আসাম সরকার। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, সমস্ত কওমি মাদ্রাসাকে নথিভুক্ত করতে হবে। সেই সঙ্গে মাদ্রাসার পরিচালক এবং মাদ্রাসার শিক্ষকদের নাম নথিভুক্ত করতে হবে। সেই সমস্ত শিক্ষকদের পরিচয়পত্র ওই পোর্টালে আপলোড করতে হবে। সেই মাদ্রাসায় কারা যাতায়াত করছে এবং কেমন বিষয়ের পড়াশোনা চলছে, তাও নজরে রাখার কথা বলা হয়েছে প্রশাসনের তরফে। কারণ বেশ কিছু মাদ্রাসায় পড়াশোনার আড়ালে জিহাদি ট্রেনিং চলছিল, এমন ঘটনা প্রকাশ্যে এসেছে। এছাড়াও, কোনও রকম অনিয়ম হলেই প্রশাসনকে খবর দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

প্রসঙ্গত, আসামের জিহাদি কাজকর্ম চলা বেশ কয়েকটি মাদ্রাসা ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়ার পরই প্রতিবাদে সরব হয় একাধিক মুসলিম সংগঠন। তাদের সঙ্গে প্রতিবাদে যোগ দেয় রাজ্যের মুসলিম রাজনৈতিক দল অল ইন্ডিয়া ইউনাইটেড ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট(AIUDF)। তাঁরা মাদ্রাসা না ভেঙে ফেলার জন্য সরকারের কাছে আবেদন জানায়। তারপরই মাদ্রাসাগুলিকে বিশেষ পোর্টালে নথিভুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেয় আসাম সরকার।

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Ads Bottom