Breaking Posts

6/trending/recent
Type Here to Get Search Results !

মহালয়ার শুভেচ্ছা জানিয়ে ইসলামিক মৌলবাদীদের আক্রমণের শিকার বাংলাদেশী হিন্দু ক্রিকেটার লিটন দাস

 


শুভ মহালয়ার পুণ্য লগ্নে শুভেচ্ছা জানিয়ে ফেসবুকে একটি পোস্ট করেছিলেন বাংলাদেশী হিন্দু ক্রিকেটার লিটন দাস। আর সেই পোস্ট ঘিরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু হলো বিতর্ক। একদল ইসলামিক মৌলবাদী লিটন দাসের ফেসবুক পোস্টে ঝাঁপিয়ে পড়লেন। চললো নোংরা কমেন্ট। কেউ কেউ আবার পরামর্শ দিলেন যে ইসলাম একমাত্র সত্য ধর্ম। কেউ কেউ আবার এক ধাপ এগিয়ে লিটন দাসকে পরামর্শ দিলেন হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করতে।

আজ রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ফেসবুকে নিজের ওয়ালে মহালয়ার শুভেচ্ছা জানিয়ে একটি পোস্ট করেছিলেন লিটল দাস। সেই পোস্টেই হামলে পড়লেন ইসলামিক মৌলবাদীরা। সেই পোস্টে লিটন দাস লিখেছিলেন “শুভ মহালয়া। মা দুর্গা আসছে।” এই পোস্ট করার ঠিক কিছুক্ষণ পরেই ইসলামিক মৌলবাদীরা লিটন দাসের টাইমলাইনে ভিড় করতে শুরু করে এবং লিটন দাসকে উদ্দেশ্য করে নানা রকম নোংরা কমেন্ট করতে থাকে। তার মধ্যে বেশিরভাগ কমেন্টই লিটন দাসের ধর্মীয় বিশ্বাসকে উদ্দেশ্য করে করা হয়েছিল।

বেশ কিছু ইসলামিক মৌলবাদী আবার মূর্তি পূজাকে ঘৃণ্য কাজ বলে উল্লেখ করে এবং বলে যে মূর্তিটি মাটির তৈরি সে আবার কেমন পূজো হতে পারে কেউ আবার লিটন দাসকে পরামর্শ দেয় যে হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করা উচিত। তার কারণ হিসেবে তাঁরা বলে যে ইসলামী হচ্ছে একমাত্র সত্য ধর্ম।

সারজাস ইসলাম নিয়াত নামের মেডিসিন কমেন্ট করেছেন, “পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ধর্ম ইসলাম”। মঈন ইসলাম ইমরুল নামে আরেকজন কমেন্ট করেছেন, “আল্লাহ সবাইকে হেদায়েত দান করুন এবং সঠিক পথের চলার তৌফিক দিক।”


আরেক ধাপ এগিয়ে এম ফেরদৌস জামান নামে একজন কমেন্ট করেছেন, “একমাত্র ইসলাম ছাড়া এই পৃথিবীতে অন্য ধর্মের কোন মূল্য নেই।” অন্যদিকে মোহাম্মদ ফেরদৌস নামে আরেকজন কমেন্ট করেছেন “তোমাদের বোঝা উচিত। এই খড় আর মাটি দিয়ে তৈরি মূর্তি কখনো তোমাদের মঙ্গল বয়ে আনবে না। কেননা ঐ মূর্তিগুলো অর্থহীন, সম্বলহীন। তাই এক আল্লাহ উপর ঈমান আনো যিনি তোমাদের সৃষ্টি কর্তা।”


আরো বেশ কিছু নেটিজেনের কমেন্টে হিন্দু ধর্মের প্রতি ঘৃণা এবং হিন্দু ধর্মের মূর্তি পূজার প্রতি ব্যঙ্গ করা হয়েছে, প্রায় বেশিরভাগ কমেন্টেই হিন্দু ধর্মের প্রতি ন্যূনতম শ্রদ্ধা দেখা যায়নি। উদাহরণস্বরূপ বলা যেতে পারে কে আর তুরান নামে একজন নেটিজেন কমেন্ট করেছেন,  “এসব পাথরের মূর্তি কোন মানুষের স্রষ্টা নয় এবং হতেও পারে না। একজন বিবেকবান সুস্থ চিন্তাধারার মানুষ পাথরের মূর্তিকে পূজা করবেনা। তোমাকে ইসলামের দাওয়াত রইলো। ফিরে আসো সঠিক পথে।”


প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, লিটন দাস বাংলাদেশের ক্রিকেট টিমের অবিচ্ছেদ্য অংশ। নিজের ক্রিকেট প্রতিভা দিয়ে তিনি বাংলাদেশকে অনেক উল্লেখযোগ্য সফলতা এনে দিয়েছেন। কিন্তু ইসলামিক সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশে একজন সংখ্যালঘুর যে কোন মূল্য নেই এবং তাঁর ধর্মীয় বিশ্বাসকে বারবার যে উপহাসের শিকার হয়, তা লিটন দাসের মতো একজন সেলিব্রিটিকেও ভুগতে হলো। এর দ্বারা সহজে অনুমেয় যে একজন সাধারণ প্রত্যন্ত গ্রামের হিন্দুকে কতটা ব্যঙ্গ উপহাস সহ্য করতে হয় শুধুমাত্র নিজের ধর্মীয় বিশ্বাসকে বজায় রাখতে। অতীতে দেখা গিয়েছে হিন্দুদের ধর্মীয় স্থান মন্দির প্রতিমা ভাঙচুর এবং হিন্দুদের সম্পত্তি দখল হিন্দু নারীদের অপহরণ ধর্ষণ ধর্মান্তর ইত্যাদি কাজে ইসলামিক মৌলবাদীদের বড়বন্ত। এবং প্রতিক্ষেত্রেই সরকার সেসব নিয়ন্ত্রণ করতে বন্ধ করছে সব বন্ধ করতে ব্যর্থ। লিটন দাসের ফেসবুকে পোস্টটি ইসলামিক মৌলবাদীদের এমন নোংরা ভাষায় আক্রমণ এটাই প্রমাণ করে যে সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ রাষ্ট্র বাংলাদেশের হিন্দুর ধর্মীয় বিশ্বাস আক্রমণের শিকার হিন্দু ধর্মীয় বিশ্বাস উপহাসের শিকার হিন্দু নিরাপত্তা ও ধর্ম বিশ্বাসের কোন মূল্যই বাংলাদেশের ইসলামিক মৌলবাদীদের কাছে নেই।

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Ads Bottom