Breaking Posts

6/trending/recent
Type Here to Get Search Results !

ত্রিনিদাদ: মা কালী ও শ্রী গণেশ মন্দিরে হামলা ও লুটপাট, সন্দেহের তীর খ্রিস্টান উগ্রপন্থীদের দিকে

Image credits: OpIndia

বিশ্বে ক্রমাগত হিন্দুদের প্রতি ঘৃণা বাড়ছে। এবার ঘটনা ত্রিনিদাদ ও টোবাগোর। ওই দেশটিতে গত এক সপ্তাহে দুটি হিন্দু মন্দিরের হামলার ঘটনা ঘটলো। দুটি মন্দিরেই হামলা ও মূর্তি ভাঙচুর করার পাশাপাশি লুটপাট করেছে দুষ্কৃতীরা। সেই সঙ্গে দুষ্কৃতীরা মন্দিরের দেওয়ালে বাইবেলের কিছু কথা লিখে রেখে গিয়েছে। সে থেকে অনুমান করা হচ্ছে যে এই ঘটনার পিছনে খ্রিস্টান উগ্রপন্থীদের হাত রয়েছে।

জানা গিয়েছে, যে দুটি হিন্দু মন্দির হামলার শিকার হয়েছে তা ত্রিনিদাদের কোভা এবং পেনাল শহরে অবস্থিত। গত ২৮ সেপ্টেম্বর, রাতের অন্ধকারের সুযোগ নিয়ে অজ্ঞাতপরিচয় দুষ্কৃতীরা কোভা শহরের কারলি বে এলাকার মা কালীর মন্দিরে হামলা চালায়। তাঁরা মন্দিরে ভাঙচুর চালায় এবং মা কালীর মূর্তিটাও ভাঙচুর করে। সেই সঙ্গে তারা মূর্তিটির গায়ে অলিভ অয়েল ঢেলে দেয়। শুধু তাই নয় দুষ্কৃতীরা মন্দিরের গায়ে বাইবেলের কিছু কথা লিখে রেখে যায়। মন্দিরের দেওয়ালে বড়ো বড়ো অক্ষরে লেখা হয় ‛Read Exodus ২০:৩-৪’। 

উল্লেখ্য, Exodus হলো পবিত্র বাইবেলের একটি অংশ। সেখানে ২০তম অধ্যায়ের ৩ নম্বর শ্লোকে লেখা হয়েছে, ‛You shall have no gods before me’। ৪ নম্বর শ্লোকে লেখা রয়েছে, ‛You shall not make for yourself an image in the form of anything in heaven or on the earth beneath or in the waters below’।

মন্দিরের দেওয়ালে এমন লেখা নজরে আসার পর এটা অনুমান করা হচ্ছে যে এই মন্দিরে হামলার পেছনে খ্রিস্টান উগ্রপন্থীদের হাত রয়েছে।

তবে মন্দির ভাঙচুর চালালেও তার পরের দিনে বিশাল সংখ্যাকে হিন্দুরা ওই মন্দিরের উপস্থিত হন এবং তারা এই মন্দিরে পূজা-অর্চনা করেন। বেশিরভাগ ভক্তরা মন্দির ভাঙ্গা অবস্থায় দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েন এবং শপথ নেন যে তাঁরা সকলে মিলে ফের মন্দিরটিকে নতুন করে গড়ে তুলবেন।

তবে ত্রিনিদাদ ও টোবাগোতে হিন্দু মন্দিরে হামলার ঘটনা এই প্রথম নয়। সপ্তাহখানেক আগে গত ২২ শে সেপ্টেম্বর রাতে পেনাল শহরের শ্রী গণেশ মন্দিরে হামলার ঘটনা ঘটে। ওই মন্দিরটি পেনাল শহরের গোপিয়ে ট্রেস এলাকায় অবস্থিত। দুষ্কৃতীরা ওই মন্দিরের পিছনের দরজা ভেঙে ভিতরে ঢোকে এবং মন্দিরের ভেতরে ভাঙচুর চালায়। শুধু তাই নয় মন্দিরের ভেতরে ওই দুষ্কৃতীরা যে মদ্যপান এবং ধূমপান করেছে, তার প্রমাণও পাওয়া গিয়েছে। এছাড়াও ওই মন্দিরের ভেতরে থাকা স্পিকার এবং সাউন্ড বক্স যার মূল্য ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় 30000 টাকার কাছাকাছি তাও চুরি করে নিয়ে যায়। মন্দিরের সিসিটিভি ফুটেছে দেখা গিয়েছে যে কয়েকজন দুষ্কৃতী মন্দিরের ভেতরে থাকা স্পিকার বক্স নিয়ে বাইরে বেরিয়ে যাচ্ছে।

দুই সপ্তাহের ভেতরে দুটি হিন্দু মন্দিরে হামলার ঘটনা ঘিরে ব্যাপক ক্ষোভ ছড়িয়েছে হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে। অনেকে বলছেন যে ত্রিনিদাদ ও টোবাগো বরাবরই শান্তিপূর্ণ দেশ এবং এখানে বহু ধর্মের মানুষ বসবাস করেন। এখানে তাঁরা বরাবরই স্বাধীনভাবে ধর্ম পালন করে আসছেন। কিন্তু বর্তমানে বেশ কিছু উগ্রপন্থী হিন্দু সম্প্রদায়ের ধর্মস্থানকে টার্গেট করছে। ওই দুষ্কৃতীরা ত্রিনিদাদ এবং টোবাগোর শান্তিপূর্ণ পরিবেশ নষ্ট করার চেষ্টা করছেন বলে অভিযোগ করেছেন হিন্দু সম্প্রদায়ের অনেকেই।

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Ads Bottom