Breaking Posts

6/trending/recent
Type Here to Get Search Results !

বাংলাদেশ: পুলিশকে শিক্ষা দিতেই ঝিনাইদহে কালী মন্দিরের প্রতিমা ভাঙচুর করেছিল ইসলামিক মৌলবাদীরা


ঝিনাইদহের শৈলকুপায় কালী মন্দিরের প্রতিমা ভাঙচুরের ঘটনার তদন্তে নেমে ৩ জন ইসলামিক মৌলবাদীকে গ্রেপ্তার করলো পুলিশ। আর তাদেরকে জেরা করেই চাঞ্চল্যকর তথ্য হাতে এলো পুলিশের হাতে। জেরায় ধৃতরা জানায় যে পুলিশের উপরে রাগ ছিল তাদের। আর সেই পুলিশকে শিক্ষা দিতেই সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের কালী মন্দিরের প্রতিমা ভাঙচুর করার পরিকল্পনা করে তাঁরা। 

পুলিশ জানিয়েছে, কালী প্রতিমা ভাঙচুর করার ঘটনায় যে তিন জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, তাঁরা হলো শৈলকুপা উপজেলার কুশবাড়িয়া গ্রামের এস এম আরব আলীর ছেলে আসাদুজ্জামান হিরো(২৯), পাঞ্জাব আলী খানের ছেলে তুষার হোসেন(৩৩) এবং আমজাদ হোসেনের ছেলে সাজ্জাদ হোসেন।

সাংবাদিক সম্মেলনে পুলিশ সুপার আশিকুর রহমান জানান যে গত ৬ই অক্টোবর আওয়ামী লীগের উপজেলার পরিচিত নেতা মতিয়ার রহমানের ছেলে দিনার বিশ্বাস এবং জিনারুল নামে দুই যুবক গড়াই নদীতে নৌকায় পিকনিক করছিলেন। সেই পিকনিকে চলছিল উদ্দাম নাচগান ও যৌনতা। পরে পুলিশ সেখানে হানা দিয়ে দুটি নৌকা ও সাউন্ড সিস্টেম বাজেয়াপ্ত করে। আর এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে মন্দিরের ভাঙার পরিকল্পনা করে তাঁরা।

সেই মতো ওই দিন রাতে ডাউটিয়া গ্রামের শত বছরের প্রাচীন কালী মন্দিরের প্রতিমা ভাঙচুর করে। তাঁরা প্রতিমার মাথা কেটে মন্দির থেকে কিছুটা দূরে ফেলে রেখে যায়। এই ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। আর এতেই পুলিশের উপরে ব্যাপক চাপ সৃষ্টি হয়। পরে অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে নামে পুলিশ। পরে গত ১২ই অক্টোবর তারিখে আসাদুজ্জামান হিরোকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাকে জেরা করে তুষার হোসেন এবং সাজ্জাদ হোসেনের খোঁজ পায় পুলিশ। পরে তাদেরকেও গ্রেপ্তার করা হয়। তবে প্রতিমা ভাঙচুরের ষড়যন্ত্রকারী দিনার বিশ্বাস পলাতক থাকায় তাকে এখনও গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Ads Bottom