Breaking Posts

6/trending/recent
Type Here to Get Search Results !

নদীয়া: সংখ্যালঘু এলাকায় ঢুকে পড়ায় তিন সাধুকে বেধড়ক মারধর

ছবি: নির্যাতনের শিকার তিন হিন্দু সাধু

এবার তিন সাধুকে মারধর করার অভিযোগ উঠলো বেশ কিছু মুসলিম দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে। অভিযোগ, ‛মাধুকরী’-তে যাওয়া তিন সাধুকে আটকে রেখে মারধর করে বেশ কিছু মুসলিম দুষ্কৃতী। গত শুক্রবার, ২৮শে অক্টোবর ঘটনাটি ঘটে বামনপুকুর বাজার এলাকায়।

জানা গিয়েছে, সাধনার অঙ্গ হিসেবে শুক্রবার সাধু লক্ষণ ঘোষ, নিমাই ঘোষ ও রঞ্জন দাস বামনপুকুর বাজার ও আশেপাশের এলাকায় ভিক্ষা সংগ্রহ করতে গিয়েছিলেন। সেখানেই তাদেরকে ঘিরে ধরে কয়েকজন দুষ্কৃতী। তারপর সেই দুষ্কৃতীরা উস্কানি দিয়ে আরও লোকজন জড়ো করে। তারপর ওই তিন সাধুকে আটকে রেখে মারধর করা হয় এবং তাদের কাছে থাকা ভিক্ষার অর্থ কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করে বলে অভিযোগ। পরে উল্টে আবার ওই তিন সাধুর বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করা হয় থানায়, এমনটাই অভিযোগ।

পরে বিষয়টি স্থানীয় RSS নেতৃত্বের নজরে আসে। তাঁরা বিষয়টি নিয়ে সরব হয়। তাদের উদ্যোগে সাধুদের উপরে এমন নির্যাতনের প্রতিবাদে মায়াপুর পুলিশ ফাঁড়িতে স্মারকলিপি দেওয়া হয়। সেই স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে, “সনাতন ধর্ম সাধনের অন্যতম অঙ্গ ‛মাধুকরী’ ভিক্ষা সংগ্রহ করবার উদ্দেশ্যে ঋণ সাধু লক্ষণ ঘোষ, নিমাই ঘোষ এবং রঞ্জন দাস। তাঁরা প্রতি সপ্তাহে একদিন সেখানে ভিক্ষা সংগ্রহ করেন। সনাতন ধর্মকে অবমাননা করার উদ্দেশ্যে ও তাদের ধর্মীয় কার্যকলাপ বন্ধ করার জন্য সেই অঞ্চলের আব্দুল হালিম(পিতা- আনার আলী), রুবেল শেখ(পিতা-নিয়াকত শেখ), হিরু শেখ(পিতা-নূর আলী) সহ একাধিক হিংস্র, ধর্মবিদ্বেষী দুষ্কৃতী ওই সাধুদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ, মারধর ও তাদের ভিক্ষা সামগ্রী ও অর্থ অপহরণের পর তাদের ঘরে আটক করে। চক্রান্ত মূলক মিথ্যা মামলায় ফাঁসায়। এই সংগঠিত সনাতন বিরোধী অপরাধের ও হিংসা ছড়ানোর বিরুদ্ধে অবিলম্বে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য আমরা দাবি জানাচ্ছি।”

পাশাপাশি খুব শীঘ্রই দুষ্কৃতীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানানো হয়েছে। সেই সঙ্গে  জানানো হয়েছে যে এই নির্যাতনের বিরুদ্ধে পথে নামবেন সাধু সমাজ। 

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Ads Bottom