Breaking Posts

6/trending/recent
Type Here to Get Search Results !

ইতালি: নতুন কোনও মসজিদ নির্মাণের অনুমতি দেওয়া হবে না, সিদ্ধান্ত সরকারের

Image credits: Wikipedia

সোনিয়া গান্ধীর জন্মভূমি অর্থাৎ ইতালিতে মসজিদ নির্মাণ নিয়ে বিশেষ নীতি চালু হতে চলেছে। উল্লেখ্য, ইতালির সাধারণ নির্বাচনে জর্জিয়া মেলনির দল 'ব্রাদার্স অফ ইতালি’ অনেকটাই পিছনে ফেলে দিয়েছে প্রধান প্রতিপক্ষকে। সূত্রের খবর, ইতালির প্রথম মহিলা প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হতে চলেছেন মেলনি। আর এরপরই মসজিদ নির্মাণ নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা করেছেন ৪৫ বছরের মেলনি। তিনি বলেছেন, 'মসজিদ নিয়ে নতুন নীতি আনবে সরকার। আগামী দিনে নতুন করে কোনও মসজিদ ইতালিতে নির্মাণ করা হবে না। শুধু তাই নয়, মসজিদের ইমাম কারা হবেন, তা-ও ঠিক করে দেবে সরকার। আর সেই ঘোষণা হবে ইতালি ভাষায়।' ইউরোপের অন্যতম একটি দেশ ইতালি সরকার এই সিদ্ধান্ত আগামী দিনে বাস্তবায়িত করলে তা গোটা ইউরোপ জুড়ে বিশেষ নজির সৃষ্টি করবে বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।


বর্তমানে ইতালির জনসংখ্যা প্রায় ছয় কোটি। তাদের মধ্যে মুসলিম জনসংখ্যা প্রায় ১৬ লক্ষ। পরিসংখ্যান বলছে, ইউরোপের চতুর্থ বৃহত্তম মুসলিম জনসংখ্যার দেশ ইতালি। যেখানে বাংলাদেশি মুসলিমের সংখ্যা প্রায় ১ লক্ষ ৪০ হাজারের মতো। অথচ বর্তমানে ইতালিতে মসজিদের সংখ্যা মাত্র আট। তাই বহুদিন ধরেই ইতালিতে মসজিদের সংখ্যা বাড়ানোর দাবি উঠেছে মুসলিম সংগঠনগুলির পক্ষ থেকে। কিন্তু মেলনি এটা পরিষ্কার করে দিয়েছেন যে, কোনওভাবেই মসজিদের সংখ্যা বাড়ানো হবে না। এর একটি কারণ, ইতালি ইসলামকে আনুষ্ঠানিকভাবে ধর্ম হিসাবে স্বীকৃতি দেয়নি। তাই ইতালির বিভিন্ন স্থানে যেমন গ্যারাজ, বেসমেন্ট বা গুদামঘরের মতো জায়গাকে নমাজ পড়ার স্থান হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। কারণ একটাই, মসজিদ নির্মাণের জন্য অর্থের সংস্থান হলেও সরকারের কাছ থেকে মসজিদ নির্মাণের অনুমতি পাওয়া যায়নি। 

জানা গিয়েছে, স্থানীয় বিভিন্ন ধর্মাবলম্বী মানুষের বিরোধিতার কারণে সরকার চাইলেও বহু সময় মসজিদ নির্মাণ বন্ধ হয়ে গিয়েছে। তখন বিভিন্ন মহল থেকে এই যুক্তি তোলা হয় যে, মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ যে কোনও জায়গায় নামাজ পড়তে পারেন। তাই সুনির্দিষ্ট ভাবে মসজিদের প্রয়োজন নেই। অতীতে এই সংক্রান্ত একটি বিল ইতালি পার্লামেন্টে আসার কথা থাকলেও পরে অবশ্য সেটি অনুমোদিত হয়নি। উল্লেখ্য ইতালিতে বেশ কিছু ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র রয়েছে। সেগুলিও নমাজের জন্য ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এই ধরনের আটশো কেন্দ্র ইতালিতে রয়েছে। এই পরিস্থিতিতে আগামী দিনে মসজিদ নির্মাণ নিয়ে ইতালি যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে। যদিও বিষয়টি নিয়ে মুসলিম সম্প্রদায়ের কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Ads Bottom