Breaking Posts

6/trending/recent
Type Here to Get Search Results !

RSS-এ ঢুকে পড়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সংগ্রহ করতে হবে, ক্যাডারদের প্রশিক্ষণ দিচ্ছিলো PFI


নিজেদের সবচেয়ে বড় শত্রু হিসেবে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ(RSS)-কে টার্গেট করেছিল পপুলার ফ্রন্ট অফ ইন্ডিয়া(PFI)। আর সেই লক্ষ্যে একাধিক শীর্ষস্থানীয় RSS নেতাকে টার্গেট করেছিল তাঁরা। আর সেই লক্ষ্যে নিজেদের ক্যাডারদের বিশেষ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছিল PFI। লখনৌ মডিউলের কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করার পর এমনই তথ্য NIA-এর হাতে এসেছে।

কিছুদিন আগে লখনৌ-এর উপকণ্ঠে আঁচড়ামাউ গ্রামে অভিযান চালিয়ে PFI-এর তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করেন গোয়েন্দারা। ধৃতরা হলো মহম্মদ ফাইজান, মহম্মদ সুফিয়ান ও রেহান। এদের ফোন ও কম্পিউটার থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে গোয়েন্দারা নিশ্চিত যে RSS-এর মধ্যে যাতে সহজে PFI সদস্যরা ঢুকে পড়তে পারে, তার জন্য প্রশিক্ষণ পরিচালনা করতো তাঁরা।

গোয়েন্দা সূত্রে খবর, RSS-এ ঢুকে পড়তে যাতে কোনও অসুবিধা না হয়, তার জন্য PFI সদস্যদের বিশেষভাবে তৈরি করা হচ্ছিল। প্রায় ৫০ জন PFI ক্যাডারকে এই প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছিল। হিন্দু দেব-দেবী সম্বন্ধে বিশেষ জ্ঞান, হিন্দুদের চালু কিছু মন্ত্র ও প্রার্থনা শেখানো হতো। তাদের বলা হতো যে হিন্দু পরিচয় ব্যবহার করে RSS-এর শাখায় ঢুকতে হবে। তারপর RSS-এর কার্যক্রম, কী কী করছে, তার খবর জোগাড় করতে হবে। সেই সঙ্গে RSS-এর শীর্ষ নেতাদের ঘনিষ্ঠ হওয়ার চেষ্টা করতে হবে। তাদের গতিবিধির উপরে নজর রাখতে হবে। 

ধৃতদের ফোন ও কম্পিউটারে এমন তথ্য পাওয়ার পরই নড়েচড়ে বসেছেন গোয়েন্দারা। কিন্তু PFI-কে নিষিদ্ধ করার পরই প্রশিক্ষণ নেওয়া বহু যুবক গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে গিয়েছে। তাদের খোঁজে বারবার অভিযান চালিয়েও লাভ হয়নি।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, কেরালায় সবচেয়ে বেশি সক্রিয় ছিল ইসলামিক মৌলবাদী সংগঠন PFI। অতীতে বহু RSS-এর নেতা ও কর্মীকে খুনের অভিযোগে PFI-এর কর্মীদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কিন্তু এসব হত্যার পিছনে যে সংগঠিত পরিকল্পনা ছিল, তা তখন জানা ছিল না। কিন্তু NIA-এর অভিযানে হাতে পাওয়া তথ্য সামনে আসার পরই এটা স্পষ্ট যে দেশজুড়ে RSS-এর নেতা-কর্মীকে টার্গেট করেছিল PFI।

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Ads Bottom