Breaking Posts

6/trending/recent
Type Here to Get Search Results !

বাংলাদেশের হিন্দুদের এবং হিন্দু মন্দিরে হামলাকে কোনোভাবে বরদাস্ত করবে না ভারত, দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে কড়া বার্তা দিলেন অমিত শাহ


বাংলাদেশের সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের উপরে ক্রমবর্ধমান মৌলবাদীদের হামলার ঘটনায় চরম উদ্বেগ প্রকাশ করলো ভারত। প্রায় নিত্যদিন হিন্দু মন্দিরে হামলা ও মূর্তি ভাঙচুর করার ঘটনা কোনোভাবেই বরদাস্ত করা হবে না, বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের সঙ্গে হওয়া দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে এমনটাই জানালেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। 

গত শুক্রবার, ১৮ই নভেম্বর দুই দেশের মন্ত্রী স্তরের মধ্যে এক উচ্চ পর্যায়ের সম্মেলন ‛No Money for Terror’ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সেই সম্মেলনের শেষে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের মধ্যে একটি দ্বিপাক্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেই বৈঠকে বাংলাদেশের সংখ্যালঘু হিন্দুদের নির্যাতন নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেন অমিত শাহ। 

অমিত শাহ বলেন, ‛বাংলাদেশের হিন্দুদের উপরে এবং হিন্দু মন্দিরের উপরে হামলা কোনোভাবেই মেনে নেবে না ভারত সরকার। মৌলবাদীদের বাড়বাড়ন্ত রুখতে যথাযোগ্য পদক্ষেপ করতে হবে বাংলাদেশ সরকারকে। পাশাপাশি হিন্দুদের উপরে হামলায় জড়িত মৌলবাদীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে’।

India will not accept attacks on Hindus and their temples in Bangladesh," Amit Shah was quoted as saying to Asaduzzaman Khan and urged that their government act immediately. This was in the aftermath of many incidents of attacks on temples in Bangladesh.

 এর পাশাপাশি সীমান্ত সুরক্ষা এবং সীমান্তে নিরাপত্তা নিয়ে দুই দেশের মধ্যে বোঝাপড়া ও সহযোগিতা বৃদ্ধির বিষয়েও দুই দেশের মধ্যে আলোচনা হয়। এছাড়াও, সামরিক খাতে দুই দেশের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতার বিষয়েও ফলপ্রসূ আলোচনা হয় বলে খবর। 

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বাংলাদেশের সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের উপরে ইসলামিক মৌলবাদীদের নির্যাতনের ঘটনা নতুন নয়। শেখ হাসিনার সরকার মৌলবাদীদের বিরুদ্ধে অনেক ক্ষেত্রে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বললেও হিন্দুদের বাড়িঘরে হামলা, মন্দিরে আক্রমণ ও মূর্তি ভাঙচুরের ঘটনা কমছে না। বরং দিন দিন বেড়েই চলেছে। আর অতীতে দেখা গিয়েছে, বাংলাদেশের নির্যাতিত হিন্দুদের নিয়ে মোদী সরকার নীরবতা পালন করে চলেছে। আর এই নীরবতা নিয়ে ভারতের হিন্দুত্ববাদী জনতার মধ্যে ব্যাপক চাঞ্চল্য দেখা গিয়েছিল। অনেকেই মোদী সরকার কেন নীরব, এ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। এবার সেই সমালোচকদের জবাব দিতেই বাংলাদেশ সরকারের উপরে পরোক্ষে চাপ সৃষ্টি করলেন অমিত শাহ, এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Ads Bottom